মাতৃভাষায় বিজ্ঞানচর্চা: কেন ও কীভাবে

18237891_1648059641888375_9009184228261259917_o

“বাংলা ভাষায় বিজ্ঞানচর্চা করা উচিত”, কথাটা বললে এরকম কথা শোনা যায় যে “বাংলা ভাষায় বিজ্ঞানচর্চা! ও আবার সম্ভব নাকি! এই যে আমরা জীববিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করি, ডিঅক্সিরাইবোনিউক্লিক এসিড (DNA) এর বাংলা করুন তো দেখি!” অন্য ডিসিপ্লিনের লোকজনও তাদের নিজেদের পড়াশোনা ও কাজের ক্ষেত্র থেকে উদাহরণ টানা শুরু করবেন। উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত বাংলা মাধ্যমে পড়াশোনা করে আসা ছেলেমেয়েগুলোকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে ইংরেজী মাধ্যমে পড়াশোনায় হাবুডুবু খেতে হয়। ব্যতিচার, অপবর্তন, বিচ্ছুরণ ভুলতে হয়; শিখতে হয় Interference, Diffraction, Scattering ইত্যাদি।

বাংলা ভাষায় বিজ্ঞানচর্চার দরকারই বা কি? ইংরেজি ভাষায় চর্চাটা চালিয়ে গেলে কি হবে না? এত পরিভাষা নিয়ে আসবো কিভাবে বাংলা ভাষায়? বিরাট বিরাট সব পাঠ্যপুস্তক আনবো কিভাবে বাংলা ভাষায়? বাংলা ভাষায় কি উচ্চতর গবেষণার জটিল সব বিষয়গুলো প্রকাশ করা সম্ভব আদৌ?

বাংলা ভাষায় বিজ্ঞানচর্চার কথা উঠলেই নেতিবাচক সুরে কথা বলার একটা ভিত্তি আছে। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে বাংলা ভাষায় আমাদের না আছে সহজবোধ্য বিজ্ঞানের পাঠ্যবই, না আছে উচ্চমানের গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশের মাধ্যম। নেই গাইটনের ফিজিওলজি বা রেইজনিক হ্যালিডের ফিজিক্স বা লেনিঞ্জারের বায়োকেমিস্ট্রির বাংলা অনুবাদ। বা ভালোমানের মৌলিক বিজ্ঞান বই।

নাকি আছে??

একটা কথা না বললেই নয়, ল্যাটিন ভাষা একসময় বিজ্ঞানের ভাষা ছিল দুনিয়াজুড়ে। এখন সে জায়গাটা নিয়ে নিয়েছে ইংরেজি। কিন্তু এ দুই ভাষাই একসময় ছিল চরম অবহেলার স্বীকার। রোমানরা ল্যাটিন ভাষাকে তুচ্ছজ্ঞান করে জ্ঞানচর্চা করতো গ্রিক ভাষায়। জ্ঞানী ইংরেজদের ছিল ফ্রেঞ্চ ভাষা নিয়ে মাত্রাতিরিক্ত বাড়াবাড়ি। আমরা বাংলা ভাষার দূর্বলতা নিয়ে যেসব কথা বলি, সেসব তখনকার রোমান ও ইংরেজরাও বলেছে।

কিন্তু কিছু রোমান, কিছু ইংরেজ জেগে উঠেছে। তারা কি করেছে, কিভাবে নিজেদের ভাষা নিয়ে কাজ করেছে জানতে হলে চলে আসুন DUSS আয়োজিত এই পক্ষিক পাঠচক্র নং ২৪ এ।
স্থান: ডাকসু দ্বিতীয় তলা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
সময়ঃ ১১ ই মে, বৃহস্পতিবার, বিকেল ৪:৩০।

পাঠচক্রটি সবার জন্য উন্মুক্ত।

গুগল ম্যাপে লোকেশন দেখতে চাইলে যান এখানে: https://goo.gl/SXozD2
যেকোন প্রয়োজনে: 01916507324

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *