বাংলাদেশের নিউক্লিয়ার শক্তি: ঝুঁকি না সম্ভাবনা?

22539672_1830480763646261_9187452672053725747_n

নিউক্লিয়ার শক্তির যুগে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ। আনুমানিক ২০২২/২৩ সালের দিকেই বাংলাদেশের প্রথম পারমাণবিক রিএক্টর স্থাপিত হতে যাচ্ছে। রাশিয়ার উদ্ভাবনকৃত VVER প্রযুক্তির এ রিএক্টরটিকে দাবি করা হচ্ছে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে নিরাপদ নিউক্লিয়ার রিএক্টর ডিজাইনগুলোর একটি যা ভূমিকম্প কিংবা বিমান হামলা সহনশীল।
কিন্তু, নিউক্লিয়ার শক্তির কথা মাথায় আসলে আপনার আমার মনে পড়ে চেরোনোবিল বা ফুকুশিমার দুর্ঘটনার কথা। আচ্ছা, আপনি কি সংশয়ে ভুগছেন যে আমাদের আদৌ নিউক্লিয়ার এনার্জি ব্যবহার করা উচিত কি না? প্রচলিত শক্তির মাধ্যমগুলোর বাইরে গিয়ে নিউক্লিয়ারের শরণাপন্ন হচ্ছি কেন আমরা? এ ব্যাপারে রাশিয়া আমাদের কিভাবে সহায়তা করছে?

২৬ অক্টোবর হয়ে যাওয়া পাঠচক্র “বাংলাদেশের নিউক্লিয়ার শক্তি:ঝুঁকি না সম্ভাবনা” নিয়ে প্রতিবেদন: Discussion on Nuclear Energy held

পাঠচক্রে নিউক্লিয়ার শক্তির বিভিন্ন অংশগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। যারা অনুষ্ঠানটিতে অংশ নিতে পারেননি অথবা যাদের অংশ নিয়েও আরো অনেক কিছু জানার আগ্রহ আছে তাদের জন্য :

Energy comparison
1) Nuclear Power and Environment Comparative Assessment of Environmental and Health Impacts of Electricity Generating Systems
2) How Deadly Is Your Kilowatt? We Rank The Killer Energy Sources

Energy Security
1) The Security of Energy Supply and the Contribution of Nuclear Energy
2) Energy Security: World Nuclear Association
3) Iran Deal, NPT and the Norms of Nuclear Non-Proliferation

Nuclear Fission
1) Nuclear Fission
2) Uranium-235 Fission
3) Nuclear Binding Energy

Nature’s Nuclear Fission Reactor
1) Nature’s Nuclear Fission Reactor
2) Light Water Reactor
3) Boiling Water Reactor

VVER
1) Generation III+ VVER nuclear reactors
2) The VVER Today

Waste Management
1) Radioactive Waste – Myths and Realities
2) Sustainable Nuclear Energy Conference

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *